৯ম ও ১০ম শ্রেণির রসায়ন ৩য় অধ্যায় হ্যান্ড নোট

রসায়ন ৩য় অধ্যায়

৯ম ও ১০ম শ্রেণির রসায়ন ৩য় অধ্যায় হ্যান্ড নোট

তোমরা কি কখনো ভেবে দেখেছ আমাদের চারপাশের জিনিসগুলো কী দিয়ে তৈরি? তোমার শরীরই বা কী দিয়ে তৈরি? হ্যাঁ, তোমাদের মতো প্রাচীন দার্শনিকেরাও এ নিয়ে বহু চিন্তা-ভাবনা করেছেন।

রসায়ন ৩য় অধ্যায়
৯ম ও ১০ম শ্রেণির রসায়ন ৩য় অধ্যায় হ্যান্ড নোট

প্রাচীন গ্রিক দার্শনিকেরা ভাবতেন মাটি, পানি, বায়ু, এবং আগুন ইত্যাদি মৌলিক পদার্থ আর অন্য সকল বস্তু এদের মিশ্রণে তৈরি। গ্রিসের দার্শনিক ডেমোক্রিটাস প্রথম বলেছিলেন, প্রত্যেক পদার্থের একক আছে যা অতি ক্ষুদ্র আর অবিভাজ্য। তিনি এর নাম দেন এটম।

কোনো বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা দিয়ে এটি প্রমাণ করা সম্ভব হয়নি বলে এটি কোনো গ্রহণযোগ্যতা উপর ভিত্তি করে পরমাণু সম্পর্ক একটি মতবাদ দেন যে, প্রটিটি পদার্থ অজস্র ক্ষুদ্র এবং অবিভাজ্য কণার সমন্বয়ে গঠিত।

>> রসায়ন ৩য় অধ্যায় হ্যান্ড নোট

তিনি দার্শডেমোক্রিটাসের মম্মানে এ একক কণার নাম দেন এটম। যার অর্থ পরমাণু। এর পরে প্রমাণিত হয় যে পরমাণু অবিভাজ্য নয়। এদের ভাঙলে পরমাণুর চেয়েও ক্ষুদ্র কণিকা ইলেকট্রন, প্রোটন, নিউট্রন ইত্যাদি পাওয়া যায়।

 

এ অধ্যায় পাঠ শেষে আমরা

১. মৌলের ইংরেজি ও ল্যাটিন নাম থেকে তাদের প্রতীক লিখতে পারব।

২. মৌলিক ও স্থায়ী কণিকাগুলোর বৈশিষ্ট্য বর্ণনা করতে পারব।

৩. পারমাণবিক সংখ্যা, ভর সংখ্যা, আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর ব্যাখ্যা করতে পারব।

৪. আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর থেকে আপেক্ষিক আণবিক ভর হিসাব করতে পারব।

৫. পরমাণুর ইলেখট্রন, প্রোটন ও নিউট্রন সংখ্যা হিসাব করতে পারব।

৬. আইসোটোপের ব্যবহার ব্যাখ্যা করতে পারব।

৭. পরমাণুর গঠন সম্পর্কে রাদারফোর্ড ও বোর পরমাণু মডেলের বর্ণনা করতে পারব।

৮. রাদারফোর্ড ও বোর পরমাণু মডেলের মধ্যে কোনটি বেশি গ্রহণযোগ্য তা ব্যাখ্যা করতে পারব।

৯. পরমাণুর বিভিন্ন কক্ষপথে এবং কক্ষপথের বিভিন্ন উপস্তরে পরমাণুর ইলেকট্রনসমূহকে বিন্যাস করতে পারব।

 

কিছু কথা

এই ছিলো আমাদের আজকের পোস্ট। আশা করি এই প্রতিবেদন থেকে আপনি কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে পেরেছেন। আপনার মূল্যবান সময় ব্যায় করে প্রতিবেদনটি দেখার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.