বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু

বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু

বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু সম্পর্কে জানুন

বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু
বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু

বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু সম্পর্কে জানুন

ব্রিজ বা সেতু মানুষের উন্নতম সেরা আবিষ্কার গুলোর মধ্যে একটি। সেতু আমাদের বড় বড় নদী পার করতে সাহায্য করে। আবার অনেক সময় পর্যটক কেন্দ্র হিসেবেও কাজ করে।

তবে কিছু কিছু সেতু বা ব্রিজ আছে যেগুলো দেখতে বা পার হতে অনেক ভয়ংকর। মানুষের জীবনের সংসয় থাকে। আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আমি আপনাদের এমন ১০টি সেতু সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করব যা ইতিহাসের পাতায় ভয়ংকর সেতু হিসেবে নাম লিখিয়েছে।

এই সেতু গুলো পার হতে গিয়ে অনেক যানবাহন দূর্ঘটনার শিকার হয়েছে। তহালে চলুন জেনে নেওয়া যাক এই ভয়ংকর সেতুগুলোর নাম সমূহ। 

বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু
বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু

বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু

একেকটি ব্রিজের নকশা একেক রকমের হয়। আমি নিচে কয়েকটি ব্রিজের নাম এবং এসই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করছি।

আশা করি এই প্রতিবেদন থেকে আপনি অনেক তথ্য জনাতে পারেন যেটা আপনাও অজানা। তাই প্রতিবেদনটি মনোযোগ দিয়ে শেষ পর্যন্ত পড়ুন। 

১. প্ল্যাংক রোড ইন দা স্কাই

বিশ্বের সব থেকে ভয়ংকর সেতু গুলোর মধ্যে সবার উপর যার নাম রাখা হয়েছে সেটি হলো প্ল্যাংক রোড ইন দা স্কাই। এই সেতুটি চীনে অবস্থিত। এই সেতুটিতে উঠার থেকে মানুষ ভয় পাই বেশি।

এর উল্লেখ যোগ্য কারণ হলো এটি মাটি থেকে প্রায় ৭০০০ ফুট উপরে অবস্থিত। আর সবথেকে বড় বিষয় হলো এই সেতুটি কাঠের তক্তা দিয়ে তৈরি করা হয়েছে।

সেতুটি এতটাই ভয়ংকর যে দুজন মানুষ পাশাপশি দাঁড়ানো সম্ভব হবে না। আপনি যদি এই সেতুটি ভয়াবহতা দেখতে চান তাহলে ব্রিজটিতে আপনাকে উঠতে হবে।

বয়স্ক ব্যক্তি বা ছোট বাচ্চারা এই সেতুতে কখনই উঠবেন না। কেবলমাত্র সাহসী ব্যক্তদের জন্যই এই সেতুটি পারফেক্ট। বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু। 

আরো পড়ুন>> পৃথিবীর পাঁচটি সবচেয়ে রোমাঞ্চকর সেতু

২. ক্যানোপি ওয়াক

এই সেতুটি মূলত একটি পার্ক। ক্যানোপি ওয়াক কানাডাতে অবস্থিত যা একটা পর্যটক কেন্দ্র হিসেবে বেশ পরিচিত। অবাক করার বিষয় হলো সেতুটি মাটি থেকে ১৩০ ফুট উপরে কাছের ডালপালার সাথে অবস্থিত।

এই সেতুটিতে আপনি বড় বড় সাপ, বানর, বড় বড় পাখিদের ডানা ঝাপটানো শুনতে পাবেন। সেতুটি যেহেতু গাছের ডালপালার সাথে তৈরি তাই এখানে আপনি ভয়ংকর কিছু দেখার সাথে সাথে উপভোগও করতে পারবেন। যেটা আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে। 

৩. মূসা ব্রিজ

এই ব্রিজটি নেদারল্যান্ডস এ অবস্থিত। যার নাম করণ করা হয় ইসলামের নবি হযরহ মূসা (আ) এর নাম অনুসারে। মূসা (আ) নীল নদকে তার লাফির সাহায্যে দুই ভাগ করে একটি ব্রিজ বা সেতু করেছিলেন।

সেতুটি পরিখার মাঝখান দিয়ে পর্যটকদের পার হতে সাযায্য করে। সেতুটি পার হয়ে পর্যটকরা ফ্রেন্স ও স্প্যানিশ আক্রমন প্রতিরোধে ১৭ শতকে নির্মিত দূর্গ ফোর্ট ডি রোভেরিতে যেতে পারে। 

আরো পড়ুন>> বিশ্বের অন্যতম বড় নদী আমাজনে কোনো সেতু নেই কেন

৪. ভিটিম রিভার ব্রিজ

ভিটিম রিভার সেতুটি রাশিয়ায় অবস্থিত। এই সেতুটি ভিটিম নদীর উপর দিয়ে কাঠের তক্তা দিয়ে বানানো হয়েছে। এই ব্রিজটি যেহেতু কাঠের তক্তা দিয়ে তৈরি করা হয়েছে তাই এটি অনেক পিছলে।

কারণ হলো যেখানে কাঠের তক্তা বাসানো হয়ছে সেটি পানি থেকে কিছুটা উপরে বা পানি বরাবর। বৃষ্টি বা বর্ষা হলে পানিতে ঢুবে যায় সেতুটি। আর এ কারণে সেতুটি পিছলে।

আর সব থেকে বড় কত হলো সেতুটি রাশিয়াতে অবস্থিত আর রাশিয়াতে বেশিরভাগ সময় শীতকাল থাকে। এজন্যও সেতুটি পিছলে থাকে সবসময়।

এই সেতুটি পার হতে হলে অন্য বিকল্প রাস্তা ব্যবহার করা উচিত। যতই অভিজ্ঞ ডাইভার থাকুক। কারণ এই সেতুতে অনেক দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটেছে।

তাই সেতুটি ভয়ংকর সেতু নামে পরিচিত। কিছু কিছু সেতু বা স্থান রয়েছে যেখানে অধিক দূর্ঘটনা ঘটে। সেই স্থান গুলোর মধ্যে এই সেতুটি একটি। বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু

আরো পড়ুন>> NASA কিভাবে বিশাল গ্রহাণুকে ধ্বংস করল

৫. পুয়েন্তে দে ওজুয়েলা

নাম শুনেই বুঝতে পারছেন এটি কোন দেশের অবস্থিত। এই ব্রিজটি অবস্থিত ম্যাক্সিকোতে। অবাক করা বিষয় হলো এতো উপরে এই সেতুতে কিভাবে যানবাহন পারাপার হয় আবার বুঝে আসে।

কারণ এই সেতুটি প্রায় ১ হাজার ৪৩ ফুট দীর্ঘ এবং ২ ফুট প্রশস্ত। সমুদ্রতল থেকে প্রায় ৩৬০ ফুট উচ্চতা সেতুটির। সেতুটি অনেক বছরের পুরোনো।

এর স্থাপিত হয় ১৮৯৮ সালে তৈরি করা হয়েছিল এবং ১৯৯১ সালে পর্যটক কেন্দ্র হিসেবে উন্মক্ত করে দেওয়া হয়। এই সেতুটি কতটা ভয়ংকর আপনি নিজের চোখে না দেখলে বিশ্বাস করতে পারবেন না।

গুগলে এই সেতুর নাম লিখে সার্চ দিলেই সেতুটির দৃশ্য আপনার সামনে আসবে। আর সেকান থেকেই আপনি বুঝতে পারবেন সেতুটি কতটা ভয়ানক। 

৬. সানশাইন স্কাইওয়ে ব্রিজ

এই সেতুটি অবস্থিত ফ্লোরিয়ায়। এই সেতুটি মূলত টাম্পা উপসাগর পার করে। দৈর্ঘ্যের কথা যদি বলি তাহলে এর দৈর্ঘ্য হলো ২১৭৮৮ ফুট।

একটি জাহাজের দ্বারা ১৯৮০ সালে সেতুটির কয়টি স্তম্ভ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। সেই দূর্ঘটনায় প্রায় ৩৭ জন মানুষ মারা যায়। তবে ১৯৮৭ সালে সেতুটি পুনরায় সংস্কার করা হয়।

আর বর্তমানে এই সেতুটি মানুষের জন্য উন্মক্ত করে দেওয়া হয়েছে। সেতুটি যেমন সুন্দর্য তেমই ভয়ংকর। নিজের চোখে না দেখে এটা বিশ্বাস করার মতো না। 

৭. সিডু রিভার ব্রিজ

পৃথিবীতে যতগুলো বড় নদী বা ব্রিজ আছে তার বেশিরভাগ চীনে অবস্থী। আর এই সেতুটিও চীনেই অবস্থিত। তবে এই সেতুটি অন্য সব সেতু বা ব্রিজের থেকে আলাদা।

সিডু রিভার সেতুটিকে ভয়ংকর সেতু হিসেবে সকলেই জানে। তাই আজকের এই লিস্টে এই সিতুটিরও নাম রয়েছে। এই ব্রিজটি নির্মান করতে প্রায় ১০০ মিলিয়ন ডলার খরচ হয়েছিল।

এটি ২০০৯ সালে নির্মান করা হয়। আর এই সেতুটির উচ্চতার কথা যদি বলি তাহলে এটি মাটি থেকে প্রায় ১৬০০ ফুট উচ্চতায় অবস্তিত।

আর সেতুটি নদীর উপত্যকা জুরে ৫০০০ ফুট দীর্ঘ। এই পর্যন্ত যে সকল সেতু তৈরি হয়েছে সেগুলোর মধ্যে শক্ত বা মজবুতের দিক থেকে এই সেতুটি উন্নতম।

সবথেকে অবাক করা বিষয় হলো এই ব্রিজটি বিশ্বের সবথেকে বড় ব্রিজ। আর এজন্য সেতুটি ভয়ংকর হওয়া টাও স্বাভাবিক। বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু। 

৮. মিলাউ ভায়াডাক্ট

সেতুটি অবস্থিত ফ্রান্সে। ভয়ংকর সেতুটি ৮০০০ ফুট দীর্ঘ এবং ১০৫ ফুট প্রসস্থ। আর সবথেকে অবাক করা বিষয় হলো সেতুটি ১১২৫ ফুট উপরে দাঁড়িয়ে আছে। 

আরো পড়ুন>> কোমল পানীয় কতটা ক্ষতিকর বিস্তারিত জানুন

৯. ক্যাপিলানো সাসপেনশন ব্রিজ

অস্বাধারণ একটি উচুনিচু সেতু হলো ক্যাপিলানো সাসপেনশন ব্রিজ। গাছপালার উপর দিয়ে তৈরি করা সেতুটি কানাডাতে অবস্থিত। সেতুটি ২৩০ ফুট উঁচু এবং ৪৩০ ফুট দীর্ঘ।

১৮৮৯ সালে এই সেতুটি নির্মিত হয়। প্রতিবছর প্রায় অনেক মানুষ এই সেতুর সাহায্যে ক্যাপিলানো নদীর দিকে যাত্রা শুরু করে। এই সেতুটি উচুনিচু হওয়ায় দূর্ঘটনা হয় বেশি।

এজন্য অনেকেই সেতুটিতে উটতে ভয় পায়। এজন্য আমাদের তালিকায় এই সেতুটি ভয়ংক ব্রিজ হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে। বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু

১০. সাসপেনশন গ্লাস ব্রিজ

আমাদের লিস্টের সর্বশেষ সেতুটি হলো সাসপেনশন গ্রাস ব্রিজ। এই ব্রিজটি চীনে অবস্থিত। এর আগেও আমি বলেছি বড় নদী বা ভয়ংক নদী গুলোর বেশিরভাগ চীনে অবস্থিত।

এই সেতুটি প্রায় ১৪১০ ফুট পর্যন্ত প্রশারিত। প্রতিবছর হাজার হাজার মানুষ এই সেতুকে দেখার জন্য ভীর জমায়। সেতুটি থেকে নিচে উকি দিলে নিচে ভূ-পৃষ্ঠ পর্যন্ত দেখা যায় অসীম দূরত্ব।

আপনি যদি হার্টের রুগী হয়ে থাকেন তাহলে এই দৃশ্য দেখার পর বিপদেও পড়তে পারেন। এই ব্রিজে চলার সময় যতটা না ভয় লাগে তার থেকে ভয়ংকর লাগে আশেপাশের দৃশ্য। আপনি চাইলে গুগলে এই সেতুটির ছবি দেখে নিতে পারেন। 

আরো পড়ুন>> বিশ্বের রহস্যময় ৯ টি প্রাচীন জায়গা

শেষ কথা

এই ছিলো আমাদের আজকের প্রতিবেদন। আশা করি এই প্রতিবেদন থেকে আপনি বিশ্বের ভয়ংকর ১০টি সেতু বা ব্রিজ সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

এছাড়াও এই প্রতিবেদনে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেওয়া আছে যেটা আপনার জ্ঞান অর্জন করতে সাহায্য করবে। বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু

>> বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু সম্পর্কে জানুন

>> বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু

2 Comments on “বিশ্বের ভয়ংকর ১০ টি সেতু”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *